মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৭ জানুয়ারি ২০২১

আর্মড ফোর্সেস মেডিক্যাল কলেজ

‘‘সমরে ও শান্তিতে রাখিব সুস্থ্য’’ মূল মন্ত্রে দীপ্ত আর্মি মেডিকেল কোর স্বাধীনতা যুদ্ধের সূচনা লগ্ন থেকে সশস্ত্র বাহিনীর বিভিন্ন স্তরের সদস্যদের শান্তিকালীন ও যুদ্ধকালীন চিকিৎসা সেবার গুরুদায়িত্ব পালনে সর্বদা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। সরকারী নীতিগত সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে ১৯৯৭ সালের নভেম্বর মাসে, সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ আর্মড ফোর্সেস মেডিক্যাল ইনষ্টিটিউট (এএফএমআই) কে প্রাথমিকভাবে আর্মড ফোর্সেস মেডিক্যাল কলেজ প্রতিষ্ঠা ও চিকিৎসা বিজ্ঞান চর্চার যাবতীয় কার্যক্রম আরম্ভ করার জন্য নির্দেশ প্রদান করে। ১৯৯৮ সালের ১৯ মার্চ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আর্মড ফোর্সেস মেডিক্যাল ইনষ্টিটিউট (এএফএমআই) প্রাঙ্গনে প্রস্তাবিত কলেজের ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন ও পতাকা উত্তোলন করেন এবং আর্মড ফোর্সেস মেডিক্যাল কলেজ প্রতিষ্ঠা লাভ করে। আর্মড ফোর্সেস মেডিক্যাল কলেজ ৫৬ জন ছাত্র/ছাত্রী নিয়ে যাত্রা শুরু করলেও এবং বর্তমানে এর ছাত্র-ছাত্রী সংখ্যা প্রতি ব্যাচে ১২৫ জন। ঢাকা সেনানিবাসের উত্তরে এয়ারপোর্ট রোড সংলগ্ন এবং সেনানিবাস রেল ষ্টেশন, হোটেল রেডিসন ও কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের বিপরীতে অবস্থিত। বাংলাদেশ মেডিক্যাল ও ডেন্টাল কাউন্সিলের সিলেবাস বা পাঠ্যসূচী অনুযায়ী এমবিবিএস ডিগ্রীর জন্য বিশেষভাবে নির্বাচিত মেডিক্যাল ছাত্র-ছাত্রীদের পাঁচ বছরের প্রশিক্ষণ সমাপনান্তে বাংলাদেশ আর্মড ফোর্সেসের  প্রয়োজনসহ তথা জাতীয় পর্যায়ে অন্তর্ভুক্তির জন্য উচ্চমান সম্পন্ন পেশাদার ডাক্তার তৈরি করাই প্রতিষ্ঠানের লক্ষ্য।    বিস্তারিত পড়ুন....

 


Share with :

Facebook Facebook